নৌকার সমর্থকদের উপর প্রকাশ্যে গুলি বর্ষণ

পটুয়াখালীর বাউফলের নওমালা ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) নির্বাচনে নৌকা প্রতীকের চেয়ারম্যাান প্রার্থী অ্যাড. কামাল হোসেন বিশ্বাসের কর্মী সমর্থকদের লক্ষ্য করে বিদ্রোহী প্রার্থী শাহজাদা হাওরাদারের ক্যাডারেরা প্রকাশ্য গুলি বর্ষণ করেছেন এমন অভিযোগ পাওয়া গেছে।

সোমবার (১ নভেম্বর) বেলা ১২টার দিকে ইউনিয়ন নগরের হাটে এঘটনা ঘটে। গুলি বর্ষণের ঘটনায় নওমালার নগরের হাট এলাকায় চরম উত্তেজনা বিরাজ করছে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে উপজেলা নির্বাহী অফিসার, উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) ঘটনাস্থলে রয়েছেন। এছাড়াও থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তার নেতৃত্বে বিপুল সংখ্যক পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

স্থানীয় সূত্র জানায়, ঘটনার দিন নৌকার প্রার্থীর বড় বোন মমতাজ বেগম (৫৩) কয়েকজন নারী সমর্থক নিয়ে ৬নম্বর ওয়ার্ডে গণসংযোগে গেলে বিদ্রোহী প্রার্থী শাহজাদা হাওলাদারে সমর্থক ওহাব, বেল্লাল ও সোহাগসহ ২০/২৫ জনের একটি দল তাদেরকে হেনস্থা করে।

এখবর জানাজানি হলে নৌকার সমর্থকরা তাদেরকে উদ্ধারের জন্য রওয়ানা হলে নগরের হাটে বিদ্রোহী প্রার্থী শাহজাদা হাওলাদারের বাড়ির সামনে থেকে নৌকার সমর্থকদের লক্ষ্য করে ৪/৫ রাউন্ড গুলি করা হয়। এসময় ২০০ গজের মধ্যেই পুলিশ অবস্থান করছিল।

ঘটনার সময় পাশের বিল্ডিংয়ের ছাদ থেকে ধারণ করা ১৯ সেকেন্ডের একটি ভিডিও দেখে যায়, বিদ্রোহী প্রার্থী শাহজাদা হাওলাদারেরর ক্যাডার মো. মিজান ওরফে পিস্তল মিজান (৩৫) শর্টগান দিয়ে নৌকার কর্মী সমর্র্থকদের উপর গুলি বর্ষণ করেন। সাথে আরও কয়কজন ইট পাটকেল নিক্ষেপ করছেন।

নৌকার প্রার্থী কামাল হোসেন বিশ্বাস অভিযোগ করেন, প্রধান নির্বাচন কমিশনারের বড় ভাই আবু তাহের খান বিদ্রোহী প্রার্থীর পক্ষে কাজ করে প্রশাসনকে বিভ্রান্ত করছেন। যার কারণে পুলিশ প্রশ্নবিদ্ধ ভূমিকা পালন করছেন। এলাকার বাহির থেকে প্রচুর সংখ্যক সন্ত্রাসী বাহিনী এনে নওমালার ভোটারদের জিম্মি করে ভোটারদের ভোট কেন্দ্রে যেতে নিষেধ করছেন এবং নৌকার গণসংযোগ করতে দিচ্ছে না।

এ বিষয়ে বিদ্রোহী প্রার্থী শাহজাদা হাওলাদার জানান, আমি ৯ নম্বর ওয়ার্ডে গণসংযোগে ছিলাম এবং আমার বাড়িতে কোন লোক ছিল না। আমার বাড়ি থেকে কেউ গুলি করেছে এমন কথা মিথ্যা এবং উদ্দেশ্যপ্রনোদিত।

বাউফল থানার ওসি আল মামুন গুলির ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, আমরা ঘটনাস্থলে রয়েছি। পরিস্থিতি শান্ত রয়েছে।

এম এ হান্নান/বার্তা বাজার/এসজে

বার্তা বাজার .কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
তুমি এটাও পছন্দ করতে পারো