কৃষকের ঘরে মাথার খুলিবিহীন শিশুর জন্ম

নাটোরের গুরুদাসপুরে মাথার খুলিবিহীন এক নবজাতকের জন্ম হয়েছে। শুক্রবার (৫ নভেম্বর) রাতে উপজেলার নাজিরপুর ইউনিয়নের নাজিরপুর বাজারে অবস্থিত আনোয়ার ক্লিনিক এ্যান্ড ডায়াগনস্টি সেন্টার নামের একটি বেসরকারী হাসপাতালে ওই শিশুর জন্ম হয়। খুলিবিহীন জন্মগ্রহণ করা শিশুর বাড়ি নাজিরপুর ইউনিয়নের বৃ-কাশো গ্রামে।

হাসপাতাল সূত্রে জানা যায়, বৃ-কাশো গ্রামের কৃষক এমদাদুল হকের স্ত্রী নাসরিন বেগম তার দ্বিতীয় সন্তান প্রসবের জন্য ওই ক্লিনিকে আসেন। শুক্রবার রাত আনুমানিক ৯টার দিকে ক্লিনিকের কর্তব্যরত চিকিৎসক ডা. আমিনুল ইসলাম সোহেল সিজারিয়ান অপারেশনের মাধ্যমে ওই শিশুর প্রসব করান। শিশুটি জন্মগ্রহণের পরেই দেখা যায় মাথার খুলি ও মস্তিষ্ক নেই। তবে মা ও শিশু সুস্থ্যভাবে এখনও বেঁচে আছেন।

শিশুটির কৃষক বাবা এমদাদুল হক জানান, তিনি পেশায় কৃষক। তার স্ত্রীর এর আগে একটি পুত্র সন্তান রয়েছে। দ্বিতীয় সন্তান প্রসবের জন্য ক্লিনিকে ভর্তি করিয়েছিলেন। অভাব অনটনের সংসার। দিনমজুরী করে নিজের জীবন-জীবিকা নির্বাহ করে থাকেন। সদ্য জন্মগ্রহণ করা দ্বিতীয় পুত্র সন্তানের নাম এখনও রাখা হয়নি। তার মাথার খুলি ও মস্তিষ্ক নেই। উন্নত চিকিৎসা করলে হয়তো তার শিশু বাচ্চা এই পৃথীবিতে বেঁচে থাকবে। কিন্তু উন্নত চিকিৎসা করার মত তার সামথ্য নেই। তাই সমাজের বিত্তবানদের এগিয়ে আসার আহ্বান জানিয়েছেন তিনি।

এ বিষয়ে ডা.মো.আমিনুল ইসলাম সোহেল জানান, মাথার খুলি ও মস্তিষ্কবিহীন যে শিশুটি জন্মগ্রহণ করেছে সেটি একটি রোগ। এই রোগের নাম Anencephaly । তার অপারেশন জীবনে তিনি এমন অনেক শিশু দেখেছেন। এটি মুলত জীন ও হরমোনের সমস্যার কারণে হয়ে থাকে। তবে এই শিশুগুলো বেঁচে থাকে না। তারপরও অনেক চেষ্টা করা হয় শিশুকে বাঁচিয়ে রাখার জন্য। বাকিটুকু মহান আল্লাহ পাকের ইচ্ছা। তবে উন্নত চিকিৎসা করালে বাঁচানোর সম্ভাবনা রয়েছে।

মেহেদি হাসান তানিম/বার্তা বাজার/এসজে

বার্তা বাজার .কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
তুমি এটাও পছন্দ করতে পারো