বাংলাদেশের কাছে সিরিজ হারা দুই দলই এখন বিশ্বকাপ ফাইনালে

শেষ দুই ওভারে দরকার ছিল ২২ রান। শাহিন শাহ আফ্রিদির করা ১৯তম ওভারের তৃতীয় বলে সীমানায় ম্যাথু ওয়েডের ক্যাচ ফেলে পাকিস্তানের চূড়ান্ত সর্বনাশ করলেন সেই হাসান।
জীবন পেয়ে পরের তিন বলে টানা তিন ছক্কায় এক ওভার বাকি থাকতেই ম্যাচ শেষ করে দিলেন ওয়েড।

পাঁচ উইকেটের রোমাঞ্চকর জয়ে পাকিস্তানের স্বপ্নযাত্রা থামিয়ে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের ফাইনালে জায়গা করে নিল অস্ট্রেলিয়া।
আর আগের সেমিফাইনালে টি-টোয়েন্টি র‌্যাংকিংয়ে শীর্ষ দল ইংল্যান্ডকে হারিয়ে ফাইনালে নিশ্চিত করে নিউজিল্যান্ড।

আগামী রোববার দুবাই আন্তর্জাতিক স্টেডিয়ামে ফাইনালে মুখোমুখি হবে নিউজিল্যান্ড ও অস্ট্রেলিয়া।
এবার ভাবনা আসতেই পারে – দুই মাস আগেই বাংলাদেশে এসে নাকানিচুবানি খাওয়া দুই দল এখন টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের দুই ফাইনালিস্ট।
সেপ্টেম্বরে মিরপুর শেরেবাংলা গ্রাউন্ডে টাইগারদের বিপক্ষে শোচনীয় পরাজয় বরণ করে গিয়েছিল দুই দল।

বাংলাদেশে এসে ৫ ম্যাচের টি-টোয়েন্টি সিরিজ খেলে ৪-১ ব্যবধানে হারে ম্যাথু ওয়েডের অস্ট্রেলিয়া। আর ৩-২ ব্যবধানে হারে নিউজিল্যান্ড।
বাংলাদেশ সফরে আসা অস্ট্রেলিয়ার সেই দলে অবশ্য ছিলেন না অধিনায়ক অ্যারন ফিঞ্চ আর ডেভিড ওয়ার্নার।

তবে গতকালের ম্যাচের মিচেল স্টার্ক, জস হ্যাজেলউড, অ্যাডাম জাম্পা, মার্কাস স্টয়েনিজ- তারা সবাই ছিলেন।
বাংলাদেশ সফরে পাঁচটি টি-টোয়েন্টিতে ম্যাথু ওয়েডের রান – ১৩, ৪, ১, ২, ২২। আর সেই ক্রিকেটার গতকাল শাহিন, শাদাব, হাসানদের বলে খেললেন ১৭ বলে অপরাজিত ৪১ রানের বিধ্বংসী ইনিংস!

এবার প্রশ্ন উঠতে পারে বাংলাদেশে বিপক্ষে পরাজয় কী দুই দলের শাপেবর হয়ে দেখা দিয়েছে? বাংলাদেশের কাছে পরাজয়কে কী তাহলে আশীর্বাদ হিসেবেই ধরে নেবে অস্ট্রেলিয়া এবং নিউজিল্যান্ড দল!

বার্তা বাজার .কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
তুমি এটাও পছন্দ করতে পারো