কোরআন রেখেছিল ‘ইকবাল’, ঘর পুড়ল সংখ্যালঘুর: দেবাংশু

বাংলাদেশের ঘটনা নিয়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় ভিডিও পোস্ট করলেন দেবাংশু ভট্টাচার্য।তিনি ভিডিওটির ক্যাপশনে লিখেছেন কোরান রেখেছিল ইকবাল ঘর পুড়ল সংখ্যালঘুর। দেবাংশু ভিডিওটিতে বলেন পবিত্র কোরান রেখেছিল ইকবাল হোসেন। নামটা শুনে নিশ্চয়ই বুঝতে পারছেন ইনি আপনাদের দেশের সংখ্যালঘু হিন্দু ভাই ছিলেন না। ইনি নিজে একজন মুসলমান ভাই।

দেবাংশু বলেন, ইকবাল হোসেন বাজরাংবলির পায়ে কোরান রাখল আপনারা ভাবলেন আমার ধর্ম সংকটে পড়েছে এবার আমরা হিন্দু বিজয় করতে চাই। কয়েকটা হিন্দুর বাড়ি ভাঙব। কয়েকটা সংখ্যালঘুর ঘর ভাঙব বোঝাবো তুই তোর দেবতার পায়ে আমাদের ধর্ম গ্রন্থ রাখতে পারিস না। আমি আশেপাশ ভাবলাম না কান চিল নিয়ে চলে গেছে চিলের পিছনে ছুটছি।

এই ঘটনায় শুধুমাত্র কয়েকটা মন্দির বা মা দুর্গাকে ভাঙলাম না ভেঙে দিলাম ৭১ সাল থেকে বাংলাদেশের ইমেজটা। তিলে তিলে তৈরি হওয়া বাংলাদেশের ইজ্জত মান-সম্মান ভেঙে দিলেন আপনারা। আপনাদের সঙ্গে পাকিস্তানের যে ডিফারেন্স ছিল সেই লাইনটকে রাবার দিয়ে মুছে দিলেন। দেবাংশু বলেন বাংলাদেশ ১০০% এর মধ্যে ১০ শতাংশ হিন্দু। তাদের কি বুকের পাটা হবে বজরংবলীর পায়ের নিচে কোরআন রাখার।

তাদের নিজেদের বিপদ কেন ডেকে আনবে প্রশ্ন তোলেন দেবাংশু। দেবাংশু বলেন তারা জানেন আর মাত্র ১০ জন সংখ্যায়। কিন্তু আপনারা এসব ভাবলেন না । ভারতবর্ষের এক অংশের মানুষ যেমন চিলে কান নিয়ে গেছে বলে দৌড়য় আপনারাও তাই করলেন। বাংলাদেশের সম্মানটা যেটা আপনারা কাধে করে বয়ে নিয়ে চলেছিলেন সেটা ম্যানহোলে ঢোকালেন।

আজ বাংলাদেশের বাঙালীদের দু’ভাগে বিভক্ত করে দিলেন আপনারা। গোটা পৃথিবীতে বাংলাদেশের এই কাণ্ড নিয়ে ছিঃ ছিঃ হচ্ছে। আমরা জানি বাংলাদেশের প্রশাসন যথেষ্ট কড়া পদক্ষেপ নিয়েছে। প্রচুর লোককে গ্রেফতার করা হয়েছে। যারা বাংলাদেশের সংখ্যাগুরু তারাও এরেস্ট হয়েছে। তার জন্য শেখ হাসিনার সরকারকে অবশ্যই ধন্যবাদ জানাই। পাশাপাশি দেবাংশু বলেন আপনারা সবাই মিলে চাইলে এই ঘটনার রুখতে পারতেন। ইকবালকে মানসিকভাবে অবসাদগ্রস্ত বলছেন।

দেবাংশু বলেন, মানসিকভাবে অবসাদগ্রস্ত একটি ছেলের কাছে এত বড় কান্ড কীভাবে ঘটে বলুন তো? বাংলাদেশের গোটা ইমেজটা নষ্ট হয়েছে পৃথিবীর সামনে। ও দেশে সংখ্যালঘুদের উপর যদি আক্রমণ হয় এদেশে একটি রাজনৈতিক দল তার কিন্তু ফায়দা তুলবে। ওই দেশে যদি সংখ্যালঘুদের ওপর আক্রমণ বাড়ে তাহলে এই দেশের সংখ্যালঘুদের উপর অত্যাচার বাড়বে। আমাদের দুই দেশকেই দায়িত্বপূর্ণ আচরণ করতে হবে।

মাথায় রাখতে হবে আমরা একটা সেনসেটিভ জায়গায় বাস করি।বাংলাদেশের ভাইবোনেরা বলছেন এটা অভ্যন্তরীণ ব্যাপার। তাহলে ভারতবর্ষের নির্বাচনের সময় আপনারা কেন কমেন্ট করেন। তারমানে আপনারাও ইন্টারেস্টেড ভারতে কি হবে না হবে।কারণ ভারত-পাকিস্তান-বাংলাদেশ একসময় একসঙ্গে ছিলাম।এই তিনটি দেশ শুধু উন্নতি করতে পারে একসঙ্গে উন্নতি করে এশিয়ার মধ্যে উচ্চ শিখরে পৌঁছতে পারে। ভারতবাসী হিসেবে পাকিস্তান গোল্লায় গেলে চিন্তা হয় বাংলাদেশে গোল্লায় গেলেও চিন্তা হয়।

দেবাংশুর এই পোস্টে অনেক কমেন্ট করেছেন। একজন লিখেছেন, অসাধারণ এই কথাগুলো সঠিক ভাবে শুনলে সত্যি সকলেরই ভালো হবে। একজন লিখেছেন, একজন ভারতীয় হিসেবে ইকবালের শাস্তি চাই এবং সঠিক তদন্ত করে বের করা হবে ইকবালের সাথে অন্য কে জড়িত আছে।-প্রথম কোলকাতা।

বার্তা বাজার/এসজে

বার্তা বাজার .কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
তুমি এটাও পছন্দ করতে পারো