নির্বাচন ছাড়াই যে ইউপির সবাই পাশ!

ভোটের আগেই এই ইউনিয়নের সব প্রার্থী নির্বাচিত। এ যেন এক বিরল ঘটনা। ফলে ওই ইউনিয়নে আর নির্বাচন হচ্ছে না। তৃতীয় ধাপে আগামী ২৮ নভেম্বর অনুষ্ঠিত হবে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার ৩ উপজেলার ৩৩টি ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচন। কিন্তু ৩ উপজেলার মধ্যে জেলার বাঞ্ছারামপুর উপজেলার ছয়ফুল্লাকান্দি ইউনিয়নে ঘটছে এই বিরল ঘটনা।

নির্বাচনে কোন প্রতিদ্বন্দ্বী ছাড়াই উপজেলার ছয়ফুল্লাকান্দি ইউনিয়নে চেয়ারম্যান, সংরক্ষিত নারী সদস্য ও সাধারণ সদস্যপদের প্রার্থীরা বিনাপ্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হয়েছে। বিষয়টি সাংবাদিকদের নিশ্চিত করেছেন উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা (ইউএনও) মোহাম্মদ আশরাফুল হোসেন।

ইউএনও মোহাম্মদ আশরাফুল হোসেন জানান, গত ১১ নভেম্বর ছিল মনোনয়নপত্র প্রত্যাহারের শেষদিন। ওইদিন যাচাই-বাছাই ও প্রত্যাহারের পর ছয়ফুল্লাকান্দি ইউনিয়নে চেয়ারম্যান, সদস্য এবং সংরক্ষিত নারী সদস্যের ১৩টি পদে একক প্রার্থী থাকায় সবাইকে বিনাপ্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত ঘোষণা করা হয়েছে। আগামী ২৮ নভেম্বর এ ইউনিয়নে নির্বাচন হওয়ার কথা ছিল। ফলে এ ইউনিয়নে আর নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে না।

ইউনিয়ন সূত্রে জানা যায়, কোনো প্রার্থী না থাকায় ছয়ফুল্লাকান্দি ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি ও বর্তমান চেয়ারম্যান আমিনুল ইসলাম তুষার বিনাপ্রতিদ্বন্দ্বিতায় আবারও নির্বাচিত হয়েছেন। এছাড়া ইউনিয়নের ৯টি ওয়ার্ডে নয়জন সদস্য ও তিনজন সংরক্ষিত নারী সদস্য বিনাপ্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হয়েছেন। তারা সবাই আওয়ামী লীগ সমর্থিত প্রার্থী ছিলেন।

জেলা নির্বাচন কার্যালয় সূত্র জানায়, তৃতীয় ধাপে ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার বাঞ্ছারামপুর, নবীনগর ও সরাইল— এ তিন উপজেলার ৩৩টি ইউপিতে নির্বাচন হবে ২৮ নভেম্বর। এরমধ্যে বাঞ্ছারামপুর উপজেলার ১২টি ইউনিয়নের মধ্যে আটজন ও নবীনগরের একটি ইউনিয়নে চেয়ারম্যানপ্রার্থী বিনাপ্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হয়েছেন। তবে, ভোটগ্রহণ হবে ৩২টি ইউপিতে। সব প্রার্থী বিনাপ্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হওয়ায় বাঞ্ছারামপুর উপজেলার ছয়ফুল্লাকান্দি ইউপিতে ভোট হচ্ছে না।

সন্তোষ চন্দ্র সূত্রধর/বার্তা বাজার/এসজে

বার্তা বাজার .কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
তুমি এটাও পছন্দ করতে পারো