ছাত্রলীগের দুই ইউনিটে দ্বন্দ্ব: সভাপতিকে পেটালেন আহ্বায়ক

লক্ষ্মীপুরের রায়পুরে মো. রনি (১৬) নামের এক ছাত্রলীগ নেতাকে পেটানোর অভিযোগ পাওয়া গেছে শরিফ হোসেন নামের সরকারি কলেজ ছাত্রলীগের আহবায়কের বিরুদ্ধে।

বৃহস্পতিবার (২১ অক্টোবর) রায়পুর সরকারি কলেজে ক্যাম্পাসে এ হামলার ঘটনা ঘটেছে।

আহত রনি পৌর ৯নং ওয়ার্ড ছাত্রলীগের সভাপতি। বিচার দাবি জানিয়ে দুপুরে শরিফ হোসেনসহ ৬ জনকে অভিযুক্ত করে থানায় লিখিত অভিযোগ করেছেন আহত রনি। দুই পক্ষের মধ্যে উত্তেজনা চলছে।

অভিযোগে জানা যায়, গত সোমবার দুপুরে রায়পুর পৌরসভা কার্যালয়ে শেখ রাসেলের জন্মদিন অনুষ্ঠানে স্থানীয় এমপি ও জেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদ এডভোকেট নুর উদ্দিন চৌধুরী নয়ন এমপির উপস্থিতিতে উপজেলা ছাত্রলীগের আহবায়ক পাপেল মাহমুদ ও যুগ্ন আহবায়ক কাউছার হোসেনের মধ্যে তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে দফায় দফায় মারামারি হয়। পরে বিষয়টি এমপি পৌরসভার মেয়রের কক্ষে সমাধান করে দেন।

এ ঘটনার জের ধরে বৃহস্পতিবার উপজেলা ছাত্রলীগের আহবায়ক পাপেল মাহমুদের অনুসারি পৌরসভার ৯নং ওয়ার্ড সভাপতি মোঃ রনি কলেজে ক্যাম্পাসে গেলে কলেজ আহবায়ক শরিফ হোসেন ও যুগ্ন আহয়ক জাবেদসহ ৬জন রনিকে বেদম পিটুনি দেয়। এসময় অন্য ছাত্ররা আহত রনিকে উদ্ধার করে শহরে নিয়ে ওষুধের দোকানে নিয়ে প্রথমিক চিকিৎসা দিয়েছে।

সরকারি কলেজ ছাত্রলীগের আহবায়ক শরিফ হোসেন বলেন, সকালে কলেজ গিয়ে কয়েক মিনিট অবস্থান করে বাড়িতে চলে আসি। এ ধরনের কোন ঘটনা কলেজে ঘটেনি। ওয়ার্ড ছাত্রলীগ সভাপতি রনি আমার বিরুদ্ধে অপপ্রচার চালাচ্ছেন।

উপজেলা ছাত্রলীগের আহবায়ক পাপেল মাহমুদ বলেন, আহত রনি ঘটনাটি আমাকে জানিয়েছে। জেলা ছাত্রলীগ নেতাদের অবহিত করেছি। কলেজের আহবায়ক শরিফ প্রায় সময় কলেজে এসব সমস্যা করে আসছে।

রায়পুর থানার ওসি আব্দুল জলিল বলেন, সরকারি কলেজে মারামারির ঘটনায় মোঃ রনি নামের এক ছাত্র লিখিত অভিযোগ দিয়েছে। অভিযোগটি তদন্ত করে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

ওসমান গণি/বার্তা বাজার/অমি

বার্তা বাজার .কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
তুমি এটাও পছন্দ করতে পারো