‘নিরপেক্ষ ভোট হবে: কোনো প্রকার দয়া দেখানোর সুযোগ নেই’

সাতক্ষীরার দেবহাটায় ভোট কেন্দ্রে দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তাদের প্রশিক্ষণে কর্মকর্তারা বলেছেন, ভোটে কোনো প্রকার স্বজনপ্রীতি বা দয়া দেখানোর সুযোগ নেই। যাকে ভোটারগন ভোট দিবেন তিনি বিজয়ী হবেন। কেন্দ্রে ও উপজেলা জুড়ে কয়েক স্থরের নিরাপত্তার ব্যবস্থা থাকবে সুতরাং কোন প্রকার বিশৃঙ্খলার সুযোগ নেই। ভোটের দিন সকালে কেন্দ্রে ব্যালেট পেপার পৌঁছানো হবে। সুতরাং কোন প্রকার অনিয়মের সুযোগ নেই। কেউ পরিবেশ নষ্ট করার চেষ্টা করলে কঠোর ভাবে দমন করা হবে।

এছাড়া ভোটকেন্দ্রের পরিস্থিতি স্বাভাবিক রাখতে বিশেষ ভূমিকা রাখার পাশাপাশি দায়িত্বপ্রাপ্তদের সাথে একে অপরের কাজ ভাগ করে নেওয়ার কথা জানানো হয়। কেন্দ্রে দীর্ঘ লাইনে কোন প্রকার বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি না হয় সেদিকে খেয়াল রাখতে হবে। এজেন্টে বা দায়িত্বপ্রাপ্ত কারোর কাছে মোবাইল ফোন না রাখার নির্দেশ দেওয়া হয়। কোনো ছোট ভুলে যদি বিশৃঙ্খলার সৃষ্টি হয় সে জন্য ঐ কেন্দ্রের দায়িত্বপ্রাপ্তদের এর দায় নিতে হবে বলেও জানানো হয়।

গোপন কক্ষে কোন প্রকার ছবি ধারণ করা যাবে না বলেও সর্তক করা হয়। এজেন্ট কেন্দ্রে ঢোকার পর আর বের হতে পারবে না। এছাড়া যে কোন তথ্য দিতে উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও ওসির মোবাইল নাম্বারে সার্বক্ষণিক কল করা যাবে।

মঙ্গলবার (২৩ নভেম্বর) সরকারি খান বাহাদুর আহছান উল্লা কলেজে এ ভোটগ্রহন কর্মকর্তাদের প্রশিক্ষণ অনুষ্ঠিত হয়। প্রথম দিনে সহকারী প্রিজাইডিং কর্মকর্তাদের এ প্রশিক্ষণে ২৬৭ জন আংশ গ্রহন করেন।

এসময় উপস্থিত থেকে কর্মকর্তাদের ভোটগ্রহন সংক্রান্ত প্রশিক্ষণ প্রদান করেন দেবহাটা উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) এবিএম খালিদ হোসেন সিদ্দিকী, দেবাহাটা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শেখ ওবায়দুল্লাহ,জেলা নির্বাচন অফিসার নাজমুল কবীর, দেবহাটা উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা (ভারপ্রাপ্ত) ও রিটার্নিং অফিসার মনোরঞ্জন বিশ্বাস, দেবহাটার (সখিপুর, নওয়াপাড়া) ইউপি রিটার্নিং কর্মকর্তা ও উপজেলা শিক্ষা অফিসার মোঃ শাহজাহান, সাতক্ষীরা সদর উপজেলা নির্বাচন অফিসার সেখ শরিফুল ইসলাম, তালা উপজেলা নির্বাচন অফিসার রাহুল রায়, কালিগঞ্জ উপজেলা নির্বাচন অফিসার অনুজ গাঈন, শ্যামনগর উপজেলা নির্বাচন অফিসার রবিউল ইসলাম, আশাশুনি উপজেলা নির্বাচন অফিসার কামরুজ্জামান সিকদার।

এসময় ২৮ নভেম্বর সুষ্ঠ ও নিরেপেক্ষ নির্বাচন সম্পন্ন করতে কর্মকর্তাদের বিভিন্ন নির্দেশনা প্রদান করা হয়।

মীর খায়রুল আলম/বার্তা বাজার/এসজে

বার্তা বাজার .কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
তুমি এটাও পছন্দ করতে পারো