ময়মনসিংহে যুদ্ধাপরাধ মামলায় গ্রেফতার ৩

ময়মনসিংহ কোতোয়ালি ও ঈশ্বরগঞ্জ থানা পুলিশের অভিযানে মানবতা বিরোধী অপরাধ মামলার তিন আসামীকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

পরে ৫৪ ধারায় গ্রেফতার দেখিয়ে তাদের ময়মনসিংহ আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়। ঈশ্বরগঞ্জ এলাকায় মুক্তিযোদ্ধের সময় গণহত্যা চালানোর অভিযোগ ১২ জনের বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ান জারি করেছে আর্ন্তজাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনাল।

গ্রেপ্তারকৃতরা হলেন- ঈশ্বরগঞ্জের আঠারবাড়ি ইউনিয়নের ইটাউলিয়া গ্রামের সমশের আলীর ছেলে তারা মিয়া (৭০)। এবং কালিয়ান গ্রামের মেফর আলীর ছেলে মো. রুস্তম আলী (৮১)। গতকাল বৃহস্পতিবার বিকেলে আঠারবাড়ি এলাকা থেকে তাদের গ্রেফতার করা হয়।

ঈশ্বরগঞ্জ থানা পুলিশ তাদের গ্রেফতার করে। অপরদিকে ময়মনসিংহ কোতোয়ালি মডেল থানা পুলিশ সৈয়দ মোস্তাফিজুর রহমান (৭২) নামে একজনকে নগরীর এবিগুহ রোড এলাকা থেকে গ্রেফতার করে। তিনি ঈশ্বরগঞ্জের সোহাগী বাজারের বাসিন্দা প্রয়াত হোসাইন আহম্মেদের ছেলে।

তারা তিনজনই মুক্তিযোদ্ধের সময় এলাকাটিতে গণহত্যা, অগ্নিসংযোগের মতো অপরাধে যুক্ত ছিলেন। তারা ছাড়াও মোট ১২ জনের বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করেছে আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনাল। এদের মধ্যে তারা মিয়া জালিয়াতির মাধ্যমে যুদ্ধাহত মুক্তিযোদ্ধা হিসেবে মুক্তিযোদ্ধা কল্যানট্রাস্টের ভাতা ভোগ করছিলেন।

ময়মনসিংহ কোতোয়ালি মডেল থানার ওসি মোহাম্মদ শাহ কামাল আকন্দ ও ঈশ্বরগঞ্জ থানার ওসি মো. আবদুল কাদের মিয়া বলেন, যুদ্ধাপরাধ ট্রাইব্যুনালের মামলায় তাদের বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি হয়েছে। সংবাদ পাওয়ার পরই তারা অভিযান চালিয়ে গ্রেফতার করে ৫৪ ধারায় আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

আরিফুল হক/বার্তা বাজার/অমি

বার্তা বাজার .কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
তুমি এটাও পছন্দ করতে পারো