২০১৮ সালের নিরাপদ সড়ক আন্দোলন ফিরে এসেছে রাজপথে!

সিটি করপোরেশনের ময়লাবাহী গাড়ির ধাক্কায় নটরডেম কলেজ শিক্ষার্থী নাঈম হাসানের মৃত্যুর ঘটনায় ফার্মগেট মোড় অবরোধ করে বিক্ষোভ করছেন শিক্ষার্থীরা। বৃহস্পতিবার (২৫ নভেম্বর) বেলা সাড়ে ১১টার দিকে রাজধানীর ৬ প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীরা ফার্মগেট এলাকায় জড়ো হয়ে সব ধরণের গণপরিবহন আটকে দিচ্ছেন। তারা বিভিন্ন গাড়ির কাগজপত্র তল্লাশি করছেন।

সরেজমিনে দেখা যায়, ফার্মগেট মোড়ে তেজগাঁও কমার্স কলেজ, আইডিয়াল কমার্স কলেজ, বিএএফ শাহীন কলেজ, সেন্ট জোসেফ কলেজিয়েট স্কুল, সরকারি বিজ্ঞান কলেজ ও হলিক্রস কলেজের শিক্ষার্থীরা অবস্থান নিয়েছেন। এসময় তারা নাঈম হাসানের মৃত্যুর বিচার দাবির পাশাপাশি বাসে হাফ পাশ ও নিরাপদ সড়কের দাবি জানান।

ফার্মগেট এলাকায় শিক্ষার্থীরা বাসসহ কোনো গণপরিবহন চলাচল করছে দিচ্ছেন না। ব্যক্তিগত গাড়ির চালকের লাইসেন্সসহ কাগজপত্র তল্লাশি করে দেখা হচ্ছে। কোনো অসংগতি পেলে গাড়ি আটকে রাখা হচ্ছে। তবে অ্যাম্বুলেন্স চলাচলে কোনো বাধা দেওয়া হচ্ছে না।

শিক্ষার্থীদের আন্দোলন নিয়ে হলিক্রস কলেজের সামরিজা ইসলাম বলেন, জীবনের মূল্য অর্থ দিয়ে নির্ধারণ করা যাবে না। একটি দুর্ঘটনা ঘটবে, আর জরিমানা দিয়ে ছাড় মিলবে, এমনটি হবে না। অন্যদিকে, সরকারি বিজ্ঞান কলেজের শিক্ষার্থী শেখ আরাফাত বলেন, যতক্ষণ দাবি না মানা হবে, ততক্ষণ আন্দোলন চলবে।

এ ছাড়া সরকারি বিজ্ঞান কলেজের শিক্ষার্থীরা ১০ দফা দাবি পেশ করেছেন। হলিক্রস কলেজের শিক্ষার্থীরাও আট দফা দাবির কথা জানিয়েছেন।

ঘটনাস্থলে উপস্থিত তেজগাঁও জোনের পুলিশের অতিরিক্ত উপকমিশনার (এডিসি) রুবাইয়াত জামান বলেন, ‘শিক্ষার্থীরা তাদের বক্তব্যগুলো আমাদের জানিয়েছে। কিন্তু সবকিছুর সমাধান রাজপথে যেমন হয় না, তেমনি সবকিছুর সমাধান দেওয়ার মালিকও পুলিশ না। তারা তাদের বক্তব্যগুলো বলছে। সেগুলো যথাযথ কর্তৃপক্ষের কাছে পৌঁছে দিচ্ছি।’

প্রসঙ্গত, ২০১৮ সালে রাজধানীর রেডিসন ব্লু হোটেলের সামনে রমিজ উদ্দিন ক্যান্টনমেন্ট কলেজের দুই শিক্ষার্থী দুই বাসের প্রতিযোগীতায় মারা যান। এরপর আন্দোলন শুরু হয় রাজধানীর পাশাপাশি সারাদেশেই।

বার্তা বাজার/এসজে

বার্তা বাজার .কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
তুমি এটাও পছন্দ করতে পারো