‘বলেছিলাম তোমার জন্য মরতে পারি’: ভাবিকে চিঠি লিখে যুবকের আত্মহত্যা

বৌদির সঙ্গে প্রেমের সম্পর্কে জড়িয়ে পড়েছিলেন। সেই সম্পর্কের টানাপড়েনেই আত্মহত্যা করলেন এক যুবক। ঘটনাটি পশ্চিম মেদিনীপুরের সবংয়ের। পুলিশ একটি সুইসাইড নোটও উদ্ধার করেছে।

পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, ওই যুবকের নাম জগন্নাথ বর্মণ (২৬)। তিনি আদতে পশ্চিম মেদিনীপুরের সবং থানার বিষ্ণুপুর পঞ্চায়েতের কুলভেড়ি গ্রামের বাসিন্দা। ওই থানার অন্তর্গত মোহাড় পঞ্চায়েতের পূর্ব মোহাড় গ্রামে জগন্নাথের পিসির বাড়ি। সেখানে থেকেই পড়াশোনা করেন তিনি।

স্নাতক হওয়ার পর কলকাতায় একটি বেসরকারি সংস্থায় চাকরি করতেন জগন্নাথ। মাঝেমাঝেই মোহাড় এলাকায় পিসির বাড়িতে যেতেন। সেখানে তাঁর এক বৌদির সঙ্গে প্রণয়ের সম্পর্কে জগন্নাথ জড়িয়ে পড়েছিলেন। সম্পর্কের টানাপড়েনের জেরে বুধবার মোহাড় এলাকায় এক আত্মীয়ের বাড়ি থেকে কিছুটা দূরে বিষ পান করেন জগন্নাথ। তাঁকে হাসপাতালে ভর্তি করানো হলেও বাঁচানো যায়নি। এমনটাই দাবি স্থানীয়দের। পুলিশ ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে।

জগন্নাথের কাছে একটি সুইসাইড নোট মিলেছে। সেখানে বৌদির উদ্দেশে লেখা, ‘আমি তোমাকে বলেছিলাম, তোমার জন্য জীবন দিতে পারি। কথা রাখলাম সোনা। আমি পারলাম না তোমায় ছেড়ে বাঁচতে। যদি সারা জীবন তুমি আমার একা থাকবে বলতে তা হলে আমি রয়ে যেতাম গো। তুমি এই ভাবে অভিনয় করেছিলে আমি জানতাম না গো। আমি মরে গেলে তোমায় আর অভিনয় করতে হবে না। তুমি ভাল থাকবে, সুখী হবে। এতেই আমি খুশি। তোমার সুখের জন্য আমি সব করতে পারি। কিন্তু তোমায় ছাড়া বাঁচা অসম্ভব। তাই চলে যাচ্ছি। জোর করে তোমার সব কিছু ছিনিয়ে নিয়েছিলাম বলে আবার তোমায় ফিরিয়ে দিলাম।’ এমন কাণ্ডে শোকের ছায়া নেমেছে গ্রামে।-আনন্দবাজার পত্রিকা।

বার্তা বাজার/এসজে

বার্তা বাজার .কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
তুমি এটাও পছন্দ করতে পারো