ওমিক্রন: আখাউড়া স্থলবন্দরে নেই বাড়তি সতর্কতা

সারা বিশ্বে করোনা ভাইরাসের আক্রান্তের সংখ্যা কিছুটা কমে আসলেও, আফ্রিকা মহাদেশে শনাক্ত হওয়া করোনা ভাইরাসের নতুন ভেরিয়েন্ট ওমিক্রন নিয়ে এখন সারা বিশ্বে আতংকের মধ্যে দিয়ে যাচ্ছে।

এরই মধ্যে গত কয়েকদিন আগে ভারতে ২ জনের শরীরে করোনা ভাইরাসের নতুন ভেরিয়েন্ট ওমিক্রনের সন্ধান পাওয়া গিয়েছে। সেই ক্ষেত্রে ভারতের সাথে বাংলাদেশের বিশাল সীমান্ত থাকার কারনে বাংলাদেশও ঝূঁকির মধ্যে রয়েছে এই ভাইরাসটি নিয়ে। এরই মধ্যে স্বাস্থ্য বিভাগ থেকে বেশকিছু প্রদক্ষেপ গ্রহণ করেছে।

এই দিকে ব্রাহ্মণবাড়িয়া আখাউড়া আন্তর্জাতিক ইমিগ্রেশন চেকপোস্ট দিয়ে চিকিৎসা ও ব্যবসা ভিসা নিয়ে প্রত্যেক দিনই ৩০০-৪০০ যাত্রী ভারত-বাংলাদেশে আসা যাওয়া করছে। আন্তর্জাতিক ইমিগ্রেশন চেকপোস্ট দিয়ে আসা যাত্রীদের ওমিক্রন নিয়ে নেই কোন বাড়তি সতর্কতা। আগের মতই চলছে স্বাস্থ্য পরীক্ষা।

সরেজমিনে ঘুরে দেখা গেছে, আখাউড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স থেকে নির্মিত হেল্থ স্ক্রিনিং বুথে একজন কর্তব্যরত ডাক্তারসহ একজন স্বাস্থ্য সহকারী ভারত থেকে আসা যাত্রীদের স্বাস্থ্য পরীক্ষা করছেন।

এখানে কর্তব্যরত ডাক্তার সুমাইয়া মেহনাজ বলেন, যারা ভারত থেকে আসছে তাদের নাম এন্ট্রি করে তাদের করোনা রিপোর্ট দেখা হয় নেগেটিভ আছে কিনা। প্রাথমিকভাবে তাদের শরীরের তাপমাত্রা পরীক্ষা করা হয়। এখানে ওমিক্রন নিয়ে নতুন করে কোন ব্যবস্থা নেওয়া হয়নি, কিন্তু করোনা টেস্টের রিপোর্টের সময়সীমা ৭২ ঘন্টা থেকে কমিয়ে ৪৮ ঘন্টা নিয়ে আসা হয়েছে। যদি কোন যাত্রীর শরীরে করোনাভাইরাসের সিনড্রোম পাওয়া যায় তখন তাদেরকে নিজ খরচে প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টাইনে পাঠানো হবে।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে জেলা সিভিল সার্জন ডা.মোঃ একরাম উল্লাহ্ বলেন, জেলা করোনা প্রতিরোধ কমিটির সিদ্ধান্ত অনুযায়ী একটি বিশেষ মেডিকেল টিম কাজ করছে স্থল বন্দরে। যাতে করে কোনো সংক্রমিত ব্যক্তি প্রবেশ করতে না পারেন। হেলথ স্ক্যানিংয়ের মাধ্যমে সেটি নিশ্চিত করার চেষ্টা করছে এ হেলথ টিম। পাশাপাশি বন্দর দিয়ে আগতদের স্বাস্থ্য সম্পর্কিত বিভিন্ন বিষয়ও জানার চেষ্টা করা হচ্ছে।

হাসান মাহমুদ পারভেজ/বার্তা বাজার/এসজে

বার্তা বাজার .কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
তুমি এটাও পছন্দ করতে পারো