ইউপি নির্বাচন: প্রতীক বরাদ্দের আগেই প্রচারণায় প্রার্থীরা

নির্বাচনী প্রতীক বরাদ্দের আগে প্রচার চালানোর নিয়ম না থাকলেও ফরিদপুরের আলফাডাঙ্গায় ইউপি নির্বাচনের প্রার্থীরা সে নিয়ম মানছেন না। তারা পুরোদমে প্রচারে নেমে গেছেন। বিশেষ করে ক্ষমতাসীন দল সমর্থিত প্রার্থীরা প্রচারণায় বেশী সরব।

চতুর্থ ধাপের ইউপি নির্বাচনে ২৬ ডিসেম্বর উপজেলার বানা, পাঁচুড়িয়া ও টগরবন্দ ইউনিয়নে ভোটগ্রহণ হবে। ইতোমধ্যে এসব ইউনিয়নে নির্বাচনে মনোনয়নপত্র দাখিলের পর প্রার্থী বাছাই প্রক্রিয়াও শেষ হয়েছে।

আগামী ৬ ডিসেম্বর প্রার্থিতা প্রত্যাহার এবং ৭ ডিসেম্বর প্রতীক বরাদ্দের কথা রয়েছে। কিন্তু নির্বাচনী আচরণবিধি অনুযায়ী প্রতীক বরাদ্দের আগে প্রচার চালানোয় নিষেধাজ্ঞা থাকলেও প্রার্থীরা তফসিল ঘোষণার সঙ্গে সঙ্গে মাঠে নেমে পড়েছেন। অধিকাংশ প্রার্থীরা নির্বাচনী নীতিমালাকে কোনো তোয়াক্কা করছেন না।

প্রকাশ্যে বিপুলসংখ্যক লোকজন নিয়ে প্রচার, গণসংযোগ, সভা, সমাবেশ চালিয়ে যাচ্ছেন। উন্নয়নের প্রতিশ্রুতি দিয়ে ভোট ও সমর্থন চেয়ে বেড়াচ্ছেন। সকাল থেকে মধ্যরাত পর্যন্ত প্রচারে ব্যস্ত তারা। এমনকি প্রতীক সম্বলিত ফেস্টুন তৈরী করে তা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ছড়িয়ে ভোট প্রার্থনা করছেন। চেয়ারম্যান-মেম্বারদের অনেকেই এমন প্রচারণায় এগিয়ে।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে এক চেয়ারম্যান প্রার্থী বলেন, ‘সব প্রার্থীই প্রচার চালাচ্ছেন। আমিও যদি না চালাই তবে ভোটের মাঠে পিছিয়ে পড়ব।’

আলফাডাঙ্গা উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা ও রিটার্নিং অফিসার শামীম আহমাদ বলেন, ‘আচরণবিধি মেনে চলার জন্য আমরা এরমধ্যে প্রার্থীদের বলে দিয়েছি। কেউ তা ভঙ্গ করলে ব্যবস্থা নেয়া হবে।’

মিয়া রাকিবুল/বার্তা বাজার/এসজে

বার্তা বাজার .কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
তুমি এটাও পছন্দ করতে পারো