সারা বিশ্বে প্রথম ট্রিলিয়নার হচ্ছেন ইলন মাস্ক!

বিশ্বে প্রথমবারের মত ১ ট্রিলিয়ন ডলারের মালিক হতে যাচ্ছেন ইলন মাস্ক। ১ ট্রিলিয়নের হিসাব করলে হয়তো অনেকের মাথা ঘুরে যাবে। ১০০ কোটির সমান হলে দাঁড়ায় ১ বিলিয়ন, আর ১ হাজার বিলিয়ন একত্রে করলে দাঁড়ায় ১ ট্রিলিয়ন। অর্থাৎ যে ১ ট্রিলিয়ন ডলার, ইউরো কিংবা পাউন্ডের মালিক সেই একজন ট্রিলিয়নার। এখন পর্যন্ত সারা বিশ্বে কেউ ট্রিলিয়নার হতে পারেননি। তবে অল্প কিছু ধনকুবের মাত্র কয়েক বছরের দুরত্বে অবস্থান করছেন বলে জানা যায়।

১৯১৬ সালের সারা বিশ্বে প্রথমবারের মত বিলিয়নিয়ার হিসেবে প্রতিষ্ঠিত হন জন ডি রকফেলার। এরপরের শত বছরে অনেক মানুষ বিলিয়নিয়ার হয়েছেন। এমনকি এক্সক্লুসিভ ১০০ বিলিয়ন ডলারের মালিকও হয়েছেন অনেকে।

করোনাকালে বিশ্বের শীর্ষ ধনীদের সম্পদের পরিমাণ বেড়ে যেতে থাকে খুব দ্রুত। সেটা বিলিয়ন ডলার পার না হলেও এবার বিশ্বে লাখ কোটি ডলার বা ট্রিলিয়নার হতে যাচ্ছেন ইলন মাস্ক। মার্কিন একটি বিনিয়োগ ব্যাংক এমনই পূর্বাভাস দিয়েছে।

দ্য গার্ডিয়ান এক প্রতিবেদনে জানায়, বিশ্বের শীর্ষ ধনী এখন ইলন মাস্ক। মার্কিন বৈদ্যুতিক গাড়ি নির্মাতা প্রতিষ্ঠান টেসলার প্রতিষ্ঠাতার সম্পদের আনুমানিক মূল্য ২৪ হাজার ১০০ কোটি ডলার। টেসলার উত্থান তাকে শীর্ষ ধনীদের কাতারে নিয়ে এসেছিল। তবে এবার টেসলা নয়। ইলন মাস্ককে লাখো কোটি ডলার সম্পদের মালিক করে দিতে চলেছে তার মহাকাশবিষয়ক প্রতিষ্ঠান স্পেসএক্স। মরগান স্ট্যানলি ব্যাংকের এক বিশ্লেষক এমনটাই পূর্বাভাস দেওয়া হয়েছে।

ব্যাংকটির বিশ্লেষক অ্যাডাম জোনস বলেন, মাস্কের বর্তমান সম্পদের বেশির ভাগই এসেছে টেসলা থেকে। তবে এবার তিনি মহাকাশ অনুসন্ধান ব্যবসা থেকে অনেক বেশি আয় করতে চলেছেন। ২০০২ সালে প্রতিষ্ঠিত স্পেসএক্স রকেট, উৎক্ষেপণ যন্ত্র ও সহায়ক অবকাঠামোর সক্ষমতা এবং সময়সীমা নিয়ে পূর্ব ধারণাকে চ্যালেঞ্জ জানিয়েছিল।

তিনি বলেন, একাধিক গ্রাহক আমাদের বলেছেন যে, ইলন মাস্ক প্রথম ট্রিলিয়নেয়ার হতে যাচ্ছেন। যদিও লাখ কোটি ডলারের এ সম্পদ গড়ে দেবে টেসলা নয়, বরং স্পেসএক্স। যেকোনো শিল্পের মধ্যে স্পেসএক্স বিশ্বের সবচেয়ে মূল্যবান সংস্থা হবে বলেও মনে করেন তিনি।

বার্তা বাজার/এসজে

বার্তা বাজার .কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
তুমি এটাও পছন্দ করতে পারো