দুই বন্ধুর একসাথে মৃত্যু, পাশাপাশি দাফন

চুয়াডাঙ্গার আলমডাঙ্গায় মোটরসাইকেল দুর্ঘটনায় নিহত দুই বন্ধু সজিব ও মারুফকে পাশাপাশি দাফন করা হয়েছে। সোমবার (২৫ অক্টোবর) রাতে উপজেলার নতিডাঙ্গা দক্ষিণপাড়া কবরস্থানে তাদের দাফন করা হয়।

আলমডাঙ্গা উপজেলার বাড়াদি ইউনিয়নের ১ নম্বর ওয়ার্ডের ইউপিসদস্য মো.ওবাইদুল হক বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, সোমবার রাত ৮টার দিকে জানাজার পর মারুফের মরদেহ গ্রাম্য করবস্থানে দাফন করা হয়। পরে রাত ৯টার দিকে মারুফের কবরের পাশেই সজিবের মরদেহ দাফন করা হয়।

সোমবার বেলা ১২ টার দিকে চুয়াডাঙ্গা পৌরএলাকার হাজরাহাটি পটলা পীরের মাজারের কাছে দুই মোটরসাইকেলের মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। এতে দুইজন নিহত এবং তিনজন আহত হন। এ সময় হতাহতদের তাৎক্ষণিক পরিচয় না পাওয়া গেলেও দুপুরে পরিবারের সদস্যরা তাদেরকে শনাক্ত করেন।

নিহতরা হলেন, আলমডাঙ্গা উপজেলার বাড়াদি ইউনিয়নের নতিডাঙ্গা গ্রামের দক্ষিণপাড়ার আকুব্বর হোসেনের ছেলে মারুফ হোসেন (২০) এবং একই এলাকার শরিফের ছেলে সজিব (২০)।

জানা গেছে, মারুফ ও সজিব দুই বন্ধু একটি মোটরসাইকেল নিয়ে মোবাইল ফোন মেরামতের জন্য চুয়াডাঙ্গা শহরে যাচ্ছিলেন। এ সময় চুয়াডাঙ্গা পৌর এলাকার হাজরাহাটি পটলা পীরের মাজারের নিকট পৌঁছালে বিপরীত দিক থেকে আসা মদন কুমার দাসের মোটরসাইকেলের সঙ্গে মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। এতে তিনজনই পাকা রাস্তার ওপর ছিটকে পড়েন।

এ সময় সড়কের একদিক থেকে আসা শ্যালো ইঞ্জিন চালিত আলমসাধুর চালক মোটরসাইকেল আরোহীদের পড়ে যেতে দেখে জোরে ব্রেক করলে আলমসাধুটি নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে রাস্তার পাশের একটি গাছের সঙ্গে ধাক্কা লাগে। এতে আলমসাধুর চালক আজিম উদ্দিন ও যাত্রী শাহিন আহত হন।

পরে স্থানীয়রা আহত পাঁচজনকে উদ্ধারকরে চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালের জরুরি বিভাগে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক মারুফকে মৃত ঘোষণা করেন। এর কিছুক্ষণ পর চিকিৎসাধীন অবস্থায় সজিবের মৃত্যু হয়। আহত তিনজনকে চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

চুয়াডাঙ্গা সদর থানার ওসি মোহাম্মদ মহসিন বলেন, হাজরাহাটি পটলা পীরের মাজারের কাছে দুই মোটরসাইকেলের মুখোমুখি সংঘর্ষে দুইজনের মৃত্যু হয়েছে। এ সময় অপর মোটরসাইকেল ও আলমসাধুচালক সহ এক যাত্রী আহত হয়েছেন। অভিযোগ না থাকায় মরাদেহ সোমবার বিকেলেই দুই পরিবারের নিকট হস্তান্তর করা হয়েছে। এ ঘটনায় অপমৃত্যু মামলা দায়ের হয়েছে।

অন্তর কুমার ঘোষ/বার্তা বাজার/এসজে

বার্তা বাজার .কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
তুমি এটাও পছন্দ করতে পারো