আগামী নির্বাচন জাতিসংঘের অধীনে হওয়ার ইঙ্গিত দিলেন রেজা কিবরিয়া

দেশে জাতিসংঘের অধীনে আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে বলে বার্তা দিয়েছেন গণ অধিকার পরিষদের আহবায়ক ড. রেজা কিবরিয়া। শুক্রবার (২৯ অক্টোবর) বিকেলে ব্যাক্তিগত সফরে নিজের জন্মস্থান নবীগঞ্জ এসে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে রেজা কিবরিয়া এ কথা বলেন।

তিনি আরো বলেন, দেশে এসে দেখলাম জনগনের ভোট চুরি করে ক্ষমতায় আসা যায়। মৃত ব্যক্তিরা রাতের বেলায় ভোট দিয়ে যায়। কোনো অভিযোগ ছাড়া গায়েবী মামলা হয়। এখন আমাদের কাজ জনগণের অধিকার আদায় করার। ভোটের অধিকার ফিরিয়ে আনা। নির্দলীয় নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে একটি নির্বাচনের ব্যবস্থা তৈরী করা। এছাড়া দেশের মানুষ শান্তিতে বসবাস করতে পারবে না।

তিনি বলেন, দু’টি ব্যবস্থায় আবারো দেশে সুষ্ঠু নিরপেক্ষ নির্বাচন করা সম্ভব। একটি হচ্ছে নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে আর আরেকটি জাতিসংঘের অধীনে।

মানুষের উপর অন্যায়ভাবে নির্যাতন নিপীড়ন চালাচ্ছে এই সরকার। হাজার হাজার আলেমদের উপর নির্মম নির্যাতন চালিয়েছে এ সরকার। দেশের মানুষকে জালেম এর হাত থেকে রক্ষা করতে হলে এই দুই ব্যবস্থায় নির্বাচন দরকার।

রেজা কিবরিয়া আরো বলেন, বিভিন্ন দেশে যেখানে গণতান্ত্রিক প্রথা ধ্বংস হয়ে যায় সেখানে আন্তর্জাতিকভাবে জাতিসংঘের মাধ্যমে দরকার হলে সৈন্য পাঠাবে। সবচেয়ে দুঃখজনক হলো আমাদের সেনাবাহিনী অন্য দেশে নিরপেক্ষ সুষ্টু নির্বাচনের ব্যবস্থা করেছে। কিন্তু ২০১৮ সালে এ ব্যাপারে তারা ব্যর্থ ছিল। আমি তাদের উপরে আর ভরসা করতে পারি না। জাতিসংঘে অনেকের সাথে আমাদের আলোচনা হচ্ছে। তারা সুন্দর সাড়া দিয়েছে। আমি মনে করি এটা জনগনের যদি দাবী হয় তাহলে জাতিসংঘ থেকে ইনশাআল্লাহ একটা সহযোগিতায় আসবে।

শুক্রবার বিকেল ৪ টায় নবীগঞ্জ নতুন বাজার মোড়ে গণ অধিকার পরিষদের নেতাকর্মীরা তাকে ফুলেল শুভেচ্ছা জানান। পরে শহরের ঐতিহ্যবাহী আরজু চাইনিজ হোটেলে স্হানীয় সাংবাদিকদের সাথে কথা বলেন ড. রেজা। এ সময় তার সাথে ছিলেন গণ অধিকার পরিষদের কেন্দ্রীয় কার্য নির্বাহী কমিটির সদস্য ডাঃ আজাদ আলী ও আবুল হোসেন জীবন।

এর আগে গণফোরাম ও বিভিন্ন রাজনৈতিক দল থেকে মোঃ রজব আলী, ফুল মিয়া পাঠান ফুল, এখলাছ মিয়া, নজরুল ইসলাম, ফজলু মিয়া, মোঃ তাজুদ মিয়া, তখলিছ মিয়াসহ প্রায় অর্ধশতাধিক নেতাকর্মী ফুলের তোড়া দিয়ে গণ অধিকার পরিষদে যোগ দেন।

বার্তা বাজার/এসজে

বার্তা বাজার .কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
তুমি এটাও পছন্দ করতে পারো