স্বাধীনতার ২ বছর পরে জন্ম নিলেও আছে মুক্তিযোদ্ধা ‘সনদ’

জামালপুরে ভুয়া মুক্তিযোদ্ধা সনদ বানিয়ে চলছে রমরমা বাণিজ্য। স্বাধীনতার দুই বছর পরে জন্ম হলেও কাউকে কাউকে দেওয়া হচ্ছে মুক্তিযোদ্ধা সনদ। বিভিন্ন সুবিধার প্রলোভন দেখিয়ে গ্রামের সাধারণ মানুষের কাছ থেকে লাখ লাখ টাকা হাতিয়ে নিচ্ছে ভুঁইফোড় একট সংগঠন।

স্বাধীনতার দুই বছর পরে জন্ম নেওয়া রাহেলা বেগম কাগজে কলমে একজন সহযোগী মুক্তিযোদ্ধা। ১৯৭১ সালের বছর খানেক আগে জন্ম নিয়ে আবু সামা, মইরন এমনকি অন্ধ জাবেদাও বনে গেছেন সহযোগী মুক্তিযদ্ধার খেতাব।

“৭১’র সহযোগী মুক্তিযোদ্ধা পরিষদ” নামে ভুঁইফোড় একটি সংগঠন এই অপকর্ম করে যাচ্ছে। গত ২ বছরে জামালপুরে তারা চালিয়েছে বেশ রমরমা বাণিজ্য।

এমন কয়েকজন মুক্তিযোদ্ধা বলেন, তিন হাজার টাকা দিয়েছি। তারপর একটা সার্টিফিকেট ও একটা মেডেল এনে দিয়েছে।

আরেকজন বলেন, আমি সহকারি মুক্তিযোদ্ধা। তখন আমি হোসেনকে জিজ্ঞাসা করলাম এটা টিকবে কিনা। তখন সে বলল টিকবে।

এ সংগঠনের প্রতিষ্ঠাতা ও চেয়ারম্যান সরদার গোলাম মোস্তফা। তার নামেই সবকিছু হলেও নিজেকে নির্দোষ দাবি করেন তিনি। জানান, তিন-চার হাজার টাকা নেয়, আমাকে দেয় কত জানেন? ১২শ’ টাকা। এরমধ্যে আইডি কার্ড, সার্টিফিকেট মন্ত্রণালয় খরচ, কম্পিউটার খরচ, যাতায়াত খরচ, ফিতা, ব্যাজ আমার এই পাঁচটিতে খরচ যায় ১ হাজার টাকা।

জামালপুরের জেলা প্রশাসক মুর্শেদা জামান বলেন, আমরা উপজেলা প্রশাসনকে বলে রেখেছি। সংশ্লিষ্ট সকলকে সতর্ক করে দিয়েছি। যাতে কোনো প্রকারের টাকার লেনদেন না হয়। আমাদের যদি ওই ধরনের বিষয়ে জানানো হয় তাৎক্ষণিক আমরা ব্যবস্থা নেবো।

বার্তা বাজার/এসজে

বার্তা বাজার .কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
তুমি এটাও পছন্দ করতে পারো